Sunday , September 22 2019
Breaking News
Home / আইনের প্রশ্নসমূহ / ৩। (ক) সাক্ষ্য বলতে কি বোঝায় ? সাক্ষ্য কত প্রকার ও কি কি ? একজন বোবা লোক কি আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করতে পারে আলোচনা করুন (খ) আদালতে কোন কোন বিষয়ে সাক্ষ্য দেওয়া যায়?

৩। (ক) সাক্ষ্য বলতে কি বোঝায় ? সাক্ষ্য কত প্রকার ও কি কি ? একজন বোবা লোক কি আদালতে সাক্ষ্য প্রদান করতে পারে আলোচনা করুন (খ) আদালতে কোন কোন বিষয়ে সাক্ষ্য দেওয়া যায়?

উত্তর: (ক)
সাক্ষ্য (Evidence): ১৮৭২ সালে প্রণীত সাক্ষ্য আইনের ৩ ধারা অনুসারে কোনো মামলার বিচার্য বিষয় বা প্রাসঙ্গিক বিষয় প্রমাণ বা অপ্রমাণ করার জন্য যে সকল বিবৃতি-বস্তু-দলিলসমূহ আদালতে উপস্থাপন করা হয় তাকে সাক্ষ্য বলে।
সাক্ষ্য প্রধানত দুই প্রকার: ১। মৌখিক সাক্ষ্য, ২। দালিলিক সাক্ষ্য।
দালিলিক সাক্ষ্য আবার দুই প্রকার: ১। প্রাথমিক সাক্ষ্য, ২। মাধ্যমিক সাক্ষ্য।
মৌখিক সাক্ষ্য (Oral Evidence): আদালতে কোনো মামলার বিচার্য বিষয় বা প্রাসঙ্গিক বিষয় সম্পর্কে সাক্ষী যে বিবৃতি প্রদান করেন তাকে মৌখিক সাক্ষ্য বলা হয়। মৌখিক সাক্ষ্য অবশ্যই প্রত্যক্ষ হতে হবে (সাক্ষ্য আইনের ৫৯, ৬০ ধারা)
দালিলিক সাক্ষ্যঃ (Documentary Evidence): যে সকল দলিল বা বস্তু আদালতে পরিদর্শনের জন্য আদালতে উপস্থাপন করা হয় তাকে দালিলিক সাক্ষ্য বলে। (সাক্ষ্য আইনের ৬১ ধারা)।
প্রাথমিক সাক্ষ্য (The Primary Evidence): মূল দলিল সরাসরি আদালতে উপস্থাপন করাকে প্রাথমিক সাক্ষ্য বলে। (সাক্ষ্য আইনের ৬২ ধারা)।
মাধ্যমিক সাক্ষ্য (The Secondary Evidence): মূল দলিল আদালতে হাজির না করে মূল দলিলের প্রতিলিপি বা ছায়ালিপি আদালতে উপস্থান করাকে মাধ্যমিক সাক্ষ্য বলে। (সাক্ষ্য আইনের ৬৩ ধারা)।

বোবা লোকের সাক্ষী: সাক্ষ্য আইনের ১১৯ ধারা অনুযায়ী একজন বোবা লোক যদি আদালতে উপস্থিত হয়ে আদালতের জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন বুঝে ইশারা, আকার ইঙ্গিতের মাধ্যমে বা লিখিতভাব উক্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হয় তাহলে বোবা লোকও আদালতে সাক্ষ্য দিতে পারবেন। (সাক্ষ্য আইনের ১১৮, ১১৯)

উত্তর: (খ) আদালতে যে সকল বিষয়ে সাক্ষ্য দেওয়া যায় তা নিম্নরুপঃ
সাক্ষ্য আইনের ৫ ধারা অনুসারে কোনো মামলার বিচার্য প্রত্যেক বিষয়ে এবং যে সকল বিষয় প্রাসঙ্গিক বলে ঘোষণা করা হয়েছে তাদের অস্তিত্ব সম্পর্কে সাক্ষ্য দেওয়া যাবে, ইহা ব্যতীত অন্য কোন বিষয় সম্পর্কে সাক্ষ্য দেওয়া যাবে না।
উদাহরণ: ক, খ-কে মৃত্যু ঘটানোর উদ্দেশ্যে লাঠি দ্বারা আঘাত করার অপরাধে অভিযুক্ত হল।
বিচার্য বিষয় ও প্রাসঙ্গিক বিষয়সমূহ নিম্নরূপঃ
১। ক কর্তৃক খ-কে লাঠি দ্বারা আঘাত করা [এখানে লাঠি হচ্ছে প্রাসঙ্গিক বিষয়]
২। ক কর্তৃক খ-এর মৃত্যু ঘটানোর উদ্দেশ্যে আঘাত করা [এখানে মৃত্যু হচ্ছে বিচার্য বিষয়, যদি মৃত্যু না হয় তাহলে আঘাত হবে বিচার্য বিষয়]

print

About masum

Check Also

০১। জেনারেল ডায়েরী লিখার প্রয়োজনীয়তা কি ? জেনারেল ডায়েরী লেখার দায়িত্ব কার ? জেনারেল ডায়েরীর আইনগত মূল্য কি? আলোচনা

১ নং প্রশ্নের উত্তর জেনারেল ডায়েরী লিখার প্রয়োজনীয়তা: ১৮৬১ সালে প্রণীত পুলিশ আইনের ৪৪ ধারা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *