Saturday , August 17 2019
Breaking News
Home / আইনের প্রশ্নসমূহ / ৪। থানা এলাকার অপরাধ নিবারনের জন্য করণীয় কি ? কোন পদবীর অফিসার নিবারন করতে পারেন আলোচনা করুন।

৪। থানা এলাকার অপরাধ নিবারনের জন্য করণীয় কি ? কোন পদবীর অফিসার নিবারন করতে পারেন আলোচনা করুন।

৪ নং প্রশ্নের উত্তর

থানা এলাকার অপরাধ প্রবনতা বেড়ে গেলে অপরাধ নিবারনের জন্য পুলিশ অফিসারের যা করণীয় তাহা আইন ও বিধি মোতাবেক নিম্নে আলোচনা করা হলো।

থানা এলাকার অপরাধ নিবারনের জন্য যা করণীয়ঃ
থানা এলাকার অপরাধ প্রবনতা বেড়ে গেলে পুলিশ আইনের ১৩, ১৪, ১৫ ধারা মোতাবেক অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে থানা এলাকার অপরাধ প্রবনতা নিবারন করা যায়।
পুলিশ আইন ১৩, ১৪, ১৫ ধারা
পিআরবি ৬৬৭, ৬৬৯, ৬৭০ বিধি

পুলিশ আইনের ১৭, ১৮, ১৯ ধারা এবং পিআরবি ৬৭৪, ৬৭৫, ৬৭৬ বিধি মোতাবেক থানা এলাকার অপরাধ নিবারণ করার জন্য বিশেষ পুলিশ নিয়োগ করে অপরাধ নিবারণ করা যায়।
পুলিশ আইনের ১৭, ১৮, ১৯ ধারা
পিআরবি ৬৭৪, ৬৭৫, ৬৭৬ বিধি

পুলিশ আইনের ২৩ ধারা মোতাবেক থানা এলাকার অপরাধ  সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ পূর্বক উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে থানা এলাকার অপরাধ নিবারণ করা যায়।
পুলিশ আইন ২৩ ধারা

কোন ব্যক্তি পুলিশ আইনের ৩৪, ৩৪(ক) ধারার অপরাধ করলে তাকে বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার পূর্বক আদালতে প্রেরণ করে থানা এলাকার অপরাধ নিবারন করা যায়।
পুলিশ আইন ৩৪, ৩৪(ক) ধারা

থানা এলাকার হাট, বাজার, অফিস আদালত, রাস্তাঘাট, রেলপথ, সড়কপথ ইত্যাদি স্থানে দায়িত্ব পালন করে অপরাধ নিবারন করা যায়।
পুলিশ আইন ৩১ ধারা

কোন দল, জাতি, গোষ্ঠী থানা এলাকায় মিছিল মিটিং শোভাযাত্রা ইত্যাদি করতে চাইলে পুলিশ সুপার বরাবরে আবেদন করবেন। পুলিশ সুপার কিছু শর্ত সাপেক্ষে তাদের অনুমতি প্রদান করে অপরাধ নিবারন করা যায়।
পুলিশ আইন ৩০, ৩০(ক) ধারা

থানা এলাকার অপরাধ প্রবণতা বেড়ে গেলে অপরাধ নিবারন করার জন্য পিআরবি ২৯৩ বিধি এবং সাক্ষ্য আইনের ১২৫ ধারা মোতাবেক সোর্স নিয়োগ/গুপ্তচর নিয়োগ করে অপরাধ নিবারন করা যায়।
সাক্ষ্য আইন ১২৫ ধারা
পিআরবি ২৯৩, ৩৪১ বিধি

চোরাইমাল, ডাকাতিমাল, লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার বা পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করার জন্য পিআরবি ২৫০ বিধি মোতাবেক পার্শ্ববর্তী থানা সমূহে হৈ চৈ বিজ্ঞপ্তি ইস্যু করে অপরাধ নিরাবন করা যায়।
পিআরবি ২৫০ বিধি

থানা এলাকায় যদি কোন আমলযোগ্য অপরাধ সংঘটিত হয় তাহলে বল প্রয়োগ করে বা বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করে থানা এলাকার অপরাধ নিবারণ করা যায়।
কাঃবিঃ ১৪৯, ১৫০, ১৫১ ধারা

থানা এলাকার অপরাধ প্রবনতা বেড়ে গেলে ভবঘুরে সন্দেহভাজন, অভ্যাসগত/সাজাপ্রাপ্ত অপরাধীদের বিনা পরোয়ানায় গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরন করে থানা এলাকার অপরাধ নিবারণ করা যায়।
কাঃবিঃ ৫৫, ১০৬, ১০৭, ১০৯, ১১০ ধারা
পিআরবি ২৮৭, ২৮৮, ২৯০ বিধি

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্তৃক অপরাধীদের তথ্য সংগ্রহের নিমিত্তে পিআরবি ৩৪৩ বিধি মোতাবেক এ-রোল এবং পিআরবি ৩৪৪ বিধি মোতাবেক বি-রোল প্রেরণের মাধ্যমে অপরাধ নিবারণ করা যায়।
পিআরবি ৩৪৩, ৩৪৪ বিধি

অপরাধ প্রবণতা বেড়ে গেলে অপরাধ নিবারণ করার জন্য পিআরবি ৩৫৬ বিধি মোতাবেক টহল বৃদ্ধি করে থানা এলাকার অপরাধ নিবারণ করা যায়।
পিআরবি ৩৫৬ বিধি

যে পদ মর্যাদার অফিসার অপরাধ নিবারনের আদেশ দিতে পারেনঃ

থানা এলাকার কোন মদের আড্ডা, জুয়ার আড্ডা, অসৎ লোকের সমাগমের স্থানে যে কোন পদ মর্যাদার পুলিশ সদস্য প্রবেশ করে অপরাধ নিবারণ করতে পারেন। সেক্ষেত্রে একজন কনস্টেবল অপরাধ নিবারণ করতে পারেন।
পুলিশ আইন ২৩ ধারা

কোন দল, জাতি বা গোষ্ঠী সমাবেশ করতে চাইলে পুলিশ সুপারের নিকট লিখিতভাবে আবেদন করবেন, পুলিশ সুপার যদি মনে করেন যে আইন শৃঙ্খলার অবনতি হবে তাহলে সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে এ ধরণের অপরাধ পুলিশ সুপার নিবারণ করতে পারেন।
পুলিশ আইন ৩০(ক) ধারা

পুলিশ আইনের ৩৪ ধারার অপরাধ গুলো এবং ৩৪(ক) ধারা মোতাবেক কালো বাজারে চিত্তবিনোদনের টিকিট কেউ বিক্রয় করলে এই ধরণের অপরাধ একজন সাব-ইন্সপেক্টর পদ মর্যাদার পুলিশ অফিসার নিবারণ করতে পারেন।
পুলিশ আইন ৩৪, ৩৪-ক ধারা।

print

About masum

Check Also

প্রশ্ন-১৪। গ্রেফতার না করেও কোনো ব্যক্তির দেহ তল্লাশি করার বিধান আছে কি ?

১৪ নং প্রশ্নের উত্তর: উত্তর: নিম্নলিখিত ক্ষেত্রে গ্রেফতার না করেও দেহ তল্লাশি করা যায়ঃ ১। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *